জয়ের সেঞ্চুরির দুয়ারে মুশফিক

ক্রীড়া ডেস্ক : ঘণ্টাখানেক পুরোদস্তুর নেট সেশন। এরপর আরও মিনিটদশেক শুধু নক করা। লম্বা সময় নেটে ঘাম ঝরিয়ে ধীর পায়ে ড্রেসিংরুমের দিকে এগিয়ে যাচ্ছিলেন মুশফিকুর রহিম। তার কাছে এগিয়ে গিয়ে সেঞ্চুরির জন্য আগাম অভিনন্দন জানাতেই কৌতূহলের চোখে তাকালেন অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান। আরেক ম্যাচ জিতলেই স্পর্শ করবেন ওয়ানডে জয়ের সেঞ্চুরি, এটি জানার পর তার ক্লান্ত মুখে ফুটে উঠল চওড়া হাসি, ‘তাই নাকি? জানতাম না তো! দারুণ ব্যাপার।’

বাংলাদেশ ক্রিকেটে দীর্ঘ পথচলায় রেকর্ড, অর্জনের ছবি অনেক এঁকেছে তার ব্যাট। এবার তিনি দাঁড়িয়ে অনন্য এক মাইলফলকের সামনে, যেখানে একবিন্দুতে মিশছে তার নিজের ও দলের সাফল্য। বাংলাদেশের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে ওয়ানডে জয়ের সেঞ্চুরি! জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম ওয়ানডে জয়টি ছিল বাংলাদেশের হয়ে মুশফিকের ৯৯তম জয়। আজ দ্বিতীয় ম্যাচে প্রত্যাশিত জয়টি পেলেই ধরা দেবে ব্যতিক্রমী এই সেঞ্চুরি।

দ্বিতীয় ওয়ানডের আগের দিন সোমবার বাংলাদেশ দলের ছিল ঐচ্ছিক অনুশীলন। তবে মুশফিক ঐচ্ছিক অনুশীলনে বরাবরই নিয়মিত মুখ। এ দিনও দীর্ঘ সময় ঝালিয়ে নিলেন ব্যাটিং। এরপর যখন শততম জয়ের হাতছানির কথা জানলেন, নিজের কীর্তিতে তিনি অভিভূত, ‘লম্বা সময় বাংলাদেশের হয়ে খেলতে পেরেছি বলেই ১০০ জয় হতে যাচ্ছে। মাশরাফি ভাই, সাকিব, তামিমরাও অনেক বছর ধরে খেলছে। আমি সৌভাগ্যবান যে সব ঠিক থাকলে সবার আগে ১০০ জয় আমার হচ্ছে।’

নিজের সমৃদ্ধ ক্যারিয়ারের সেরা প্রাপ্তিগুলোর একটি হিসেবেই এই অর্জনকে রাখছেন মুশফিক, ‘দলের জয়ই আমাদের কাছে শেষ কথা। ১০০টি জয় দেখতে পারছি দলের, অনেক বড় ব্যাপার এটি। আমার ক্যারিয়ারের সেরা অর্জনগুলোর একটি হবে এটি।’ ২১৭ ওয়ানডে খেলে আপাতত ৯৯ জয় মুশফিকের। বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের মধ্যে তার পরেই আছেন মাশরাফি। ৯৭টি ওয়ানডে জয়ের স্বাদ পেয়েছেন তিনি, তবে বাংলাদেশের হয়ে জিতেছেন ২১৬ ম্যাচের ৯৫টি। তার বাকি দুটি জয় এশিয়া একাদশের হয়ে আফ্রিকা একাদশের বিপক্ষে।

নিষেধাজ্ঞার কারণে আপাতত ক্রিকেটের বাইরে থাকা সাকিব আল হাসানও আছেন শততম জয়ের খুব কাছে। বাংলাদেশের সব সময়ের সেরা ক্রিকেটার ২০৬ ওয়ানডে খেলে জয়ের সাক্ষী হয়েছেন ৯৪ ম্যাচে।২০৫ ম্যাচে বাংলাদেশের ৮৬ জয় দেখেছেন তামিম ইকবাল, ১৮৬ ম্যাচে ৮৩টি মাহমুদউল্লাহ।

খবরটি শেয়ার করুন...
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0Print this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি