কোহলির আচরণে আস্থা মদন লালের

মাঠে বিরাট কোহলির আচরণ নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা আছে অনেককাল ধরেই। কেউ তার এই প্রতিপক্ষকে তাতিয়ে দেওয়ার মতো আচরণকে পছন্দ করেন, আবার কারো কাছে এই আচরণ আপত্তিকর। কিন্তু ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) নতুন ক্রিকেট উপদেষ্টা কমিটির প্রধান মদন লাল বলছেন, ভারতের এরকম আক্রমণাত্মক অধিনায়কই দরকার। তিনি কোহলির আচরণে সন্তুষ্ট।

সম্প্রতি নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে এক ম্যাচে কোহলি বাজে আচরণ করেছেন প্রতিপক্ষ অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনের সঙ্গে। উইলিয়ামসন আউট হয়ে ফেরার সময় তাকে বাজেভাবে ফেরার পথ দেখিয়ে দিয়েছেন। এমনিতে কোহলি ও উইলিয়ামসনকে ভালো বন্ধু বলেই মনে করা হয়। তার পরও এই আচরণে অনেকে অবাক হয়েছেন।

সাবেক ভারতীয় অলরাউন্ডার মদন লাল কোহলির এই আচরণে অন্যায় কিছু দেখছেন না। তিনি বরং লোকেদের প্রতিক্রিয়ায় বিস্মিত হয়েছেন, ‘আমি বুঝি না, লোকে কেন কোহলিকে কণ্ঠ নিচু করতে বলে। প্রথমে সবাই একজন আক্রমণাত্মক অধিনায়ক খোঁজ করছিল। এরপর এখন কোহলিকে সেই আক্রমণাত্মক আচরণ বন্ধ করতে বলছে। আমি মাঠে ওর আচরণ পছন্দ করি। আগে লোকেরা বলত, ভারতীয়রা মাঠে আক্রমণাত্মক নয়। এখন আমরা আক্রমণাত্মক হওয়ার পর তারাই প্রশ্ন করে, তোমরা এত আক্রমণাত্মক কেন? আমি কোহলির আক্রমণাত্মক ভঙ্গি পছন্দ করি এবং আমাদের ওর মতো অধিনায়কই দরকার।’

ভারত অবশ্য শেষ পর্যন্ত নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হয়েছে। এই ম্যাচের পর তাকে উইলিয়ামসনের আচরণ নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি সংবাদ সম্মেলনেও উত্তেজিত হয়ে পড়েছিলেন। সেই সঙ্গে বলেছিলেন, এ নিয়ে বিতর্ক তৈরি করবেন না।

এই টেস্ট সিরিজ ব্যক্তিগতভাবে কোহলির জন্য খুব খারাপ গেছে। এখানে চার ইনিংস মিলিয়ে মাত্র ৩৮ রান করতে পেরেছেন বিশ্বের অন্যতম সেরা এই ব্যাটসম্যান। তিন ফরম্যাট মিলিয়ে লম্বা এই সফরে একটা মাত্র হাফ সেঞ্চুরি করতে পেরেছেন তিনি।

এ নিয়ে প্রচুর সমালোচনা তৈরি হলেও মদন লাল এটাকে সামান্য অফ ফর্মের চেয়ে বেশি কিছু বলে ভাবতে রাজি নন। তিনি বলছিলেন, ‘সে আউট অব ফর্মে আছে। আপনি বলতে পারেন, ওর আত্মবিশ্বাসের একটু ঘাটতি ছিল। এটা ওর কাছ থেকে কিছুই কেড়ে নেবে না। সে এখনো বিশ্বসেরা খেলোয়াড়। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে টেকনিক্যাল কিছু ত্রুটি তৈরি হয়। সেগুলো থেকে বের হয়ে আসাটা কঠিন থেকে কঠিনতর হয়, এটা সত্যি। কিন্তু ভালো খেলোয়াড়েরা এখান থেকে বেরিয়ে আসে। যে সেরা সে এভাবেই সেরা হয়।’ বিসিসিআইয়ের নতুন ক্রিকেট উপদেষ্টা কমিটির প্রধান হয়েছেন মদন লাল। সেই সঙ্গে তার সঙ্গে আছেন আরপি সিং ও সুলক্ষণা নায়েক। তারা সম্প্রতি জাতীয় দলের নির্বাচক কমিটি ঠিক করেছেন। এই কমিটির প্রধান হয়েছেন সুনীল জোশি। আর আছেন কমিটিতে হারবিন্দর সিং।

খবরটি শেয়ার করুন...
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0Print this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি