নওগাঁ-৬ (আত্রাই-রানীনগর) আসনে উপনির্বাচন : ইউপি চেয়ারম্যান থেকে সংসদের পথে আনোয়ার হোসেন হেলাল

রাজশাহী ডেস্ক :  নওগাঁ-৬ (আত্রাই-রানীনগর) আসনের উপনির্বাচনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন আনোয়ার হোসেন হেলাল। তিনি রানীনগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি পদে রয়েছেন।গত সোমবার আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের নিজ বাসায় (ভার্চুয়াল) ব্রিফিংকালে নওগাঁ-৬ আসনের উপনির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেন। এই নাম ঘোষণার পর থেকে এলাকায় নেতাকর্মী ও সমর্থকরা আনন্দ উল্লাসে মেতে উঠেছেন। বিভিন্ন মহল শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন।
জানা গেছে, ১৯৬৪ সালের ১২ জুলাই আওয়ামী লীগ পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন আনোয়ার হোসেন হেলাল। তিনি একজন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী। তার বাবা মরহুম আজিম উদ্দীন সরদার ১৯৭৫ সালে উপজেলার ১নং খট্টেশ্বর রানীনগর ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার এবং ১৯৯১ সালে ইউপি চেয়ারম্যান ছিলেন। আনোয়ার হোসেন হেলাল ২০০৩ সালে ১নং খট্টেশ্বর রানীনগর ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান হিসেবে প্রথম জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হন। এরপর ২০০৯ সালে রানীনগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করে বিজয়ী হন। ইউনিয়ন এবং উপজেলা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ছিলেন তৎকালীন উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আল ফারুক জেমস।
২০১৪ সালে আবারও নৌকা প্রতীক নিয়ে রানীনগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করে তৎকালীন উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আল ফারুক জেমসের কাছে পরাজিত হন। ২০১৯ সালে রানীনগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে অংশ গ্রহণ করে বিজয়ী হন তিনি। এতে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ছিলেন নৌকা প্রতীকের একডালা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন বিএ।
হেলাল তার রাজনৈতিক জীবনে একবার ইউপি চেয়ারম্যান এবং দুবার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হন। ২০১৪ সাল থেকে তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি পদে রয়েছেন। ২০০০ সালের ১৯ জুন তার ছোট ভাই নজরুল ইসলাম নজুকে সর্বহারা (বাংলা ভাই) নৃশংসভাবে গলা কেটে হত্যা করে। এলাকাবাসী বলছেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একজন যোগ্য ব্যক্তিকে এ আসনের উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনীত করেছেন। আনোয়ার হোসেন হেলাল সুখে-দুঃখে এলাকাবাসীর পাশে ছিলেন এবং আগামীতেও থাকবেন।
নওগাঁ-৬ আসনের উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী আনোয়ার হোসেন হেলাল বলেন, আমি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞ। তিনি আমাকে ভালোবেসে নৌকা প্রতীকে মনোনীত করেছেন। আমার প্রতি তিনি আস্থা রেখেছেন। নির্বাচনে জয়লাভ করে এ আসনটি তাকে উপহার দেবো ইনশাল্লাহ। তিনি বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু হবে। বিএনপি তাদের মতো নির্বাচন করবে। আমরা আমাদের মতো নির্বাচন করবো। আমি বিশ্বাস করি বিএনপি থেকে অনেক বেশি ভোটে এগিয়ে থাকবো।
নির্বাচনে জয়লাভ করতে পারলে এলাকাবাসীর সুখে-দুঃখে পাশে থাকবো। এক সময়ে ‘বাংলা ভাই’ নামে পরিচিত সর্বহারা-জেএমবি আবার যেন মাথা চাড়া দিতে না পারে এবং এলাকার মানুষ যেন শান্তিতে থাকতে পারে সে বিষয়ও মাথায় রাখবো।গত ২৭ জুলাই ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এ আসনের এমপি ইসরাফিল আলম মারা গেলে আসনটি শূণ্য ঘোষণা করা হয়। তপশীল অনুযায়ী আগামী ১৭ অক্টোবর এই উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

খবরটি শেয়ার করুন...
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0Print this page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি